ইউরোপে সবচেয়ে বেশি গোল রোনালদোর

0 ২৮০

ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ ফুটবল লীগের ক্যারিয়ারে সর্বাধিক গোলের রেকর্ড স্পর্শ করলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। রোববার স্প্যানিশ লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে ৪-১ গোলে জয় কুড়ায় তার দল রিয়াল মাদ্রিদ। এতে এবারের লা লিগা শিরোপার দৌড়ে এগিয়ে রইলো রিয়াল মাদ্রিদই। যদিও সমান পয়েন্ট নিয়ে হেড টু হেড ফলের নিরিখে তালিকার শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা। তবে রিয়াল মাদ্রিদের হাতে এক ম্যাচ বেশি রয়েছে। রোববার ম্যাচে জোড়া গোল পান রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগিজ স্ট্রাইকার রোনালদো। আর ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগের ক্যারিয়ারে রোনালদোর গোলের সংখ্যাটা পৌঁছে ৩৬৬-তে। এতে রোনালদো স্পর্শ করেন ইংলিশ লিজেন্ড জিমি গ্রিভসের রেকর্ড। ক্যারিয়ারে টটেনহ্যাম, চেলসি ও এসি মিলানের জার্সি গায়ে ৩৬৬ গোল রয়েছে গ্রিভসের। রোনালদো রেকর্ডটি ভেঙে দিতে পারেন চলতি মৌসুমেই।
এবারের স্প্যানিশ লা লিগায় দুই ম্যাচ বাকি রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের। রোববার নৈপুণ্য শেষে রিয়াল মাদ্রিদের জার্সি গায়ে ক্যারিয়ারে অফিশিয়ালি ৪০০ গোলের ল্যান্ডমার্কও স্পর্শ করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। মাদ্রিদে ম্যাচ শেষে অফিশিয়ালি রোনালদোর গোলের সংখ্যাটা পৌঁছে ৪০১-এ। ৮ বছরের ক্যারিয়ারে রিয়ালের জার্সি গায়ে তিনি খেলেছেন ৩৯১ ম্যাচ। রোববার মাদ্রিদের সান্টিয়াগো বার্নাব্যু মাঠে ম্যাচের দশম মিনিটে নাচোর গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। ২৩তম মিনিটে গোল নিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সিআর সেভেনখ্যাত রোনালদো। বিরতির পরপর এক গোল শোধ দেন ম্যানচেস্টার সিটি থেকে সেভিয়ায় যোগ দেয়া সার্বিয়ান ফরোয়ার্ড স্টেভান ইয়োভেটিচ। তবে ম্যাচের ৭৮ ও ৮৪তম মিনিটে রোনালদো ও জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুসের গোলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিক রিয়াল। এতে রেকর্ডে রোনালদো ছাড়িয়ে যান জার্মান কিংবদন্তি জার্ড মুলারকে। ক্যারিয়ারে ৩৬৫ গোল রয়েছে জার্মান লিজেন্ড জার্ড মুলারের।
স্প্যানিশ লা লিগায় রোনালদো পেলেন ২৮২ গোল। আর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জার্সি গায়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ৮৪ গোল রয়েছে রোনালদোর। ক্যারিয়ার চালু থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যে এ রেকর্ডের সুযোগ রয়েছে লিওনেল মেসি ও জ্লাতান ইবরাহিমোভিচের সামনে। বার্সেলোনার জার্সি গায়ে স্প্যানিশ লা লীগায় আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসির রয়েছে ৩৪৬ গোল। তালিকার ১১তম স্থানে সুইডিশ স্ট্রাইকার ইবরাহিমোভিচ ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগের ক্যারিয়ারে পেয়েছেন ২৬৮ গোল। ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ সেমিফাইনালে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক শেষে রোনালদোর ৪০০ গোল পূর্ণ হয়েছে বলে জানায় তার দল রিয়াল মাদ্রিদ। তবে অফিশিয়ালি এমন ল্যান্ডমার্ক থেকে এক কদম দূরে ছিলেন রোনালদো। ২০১০ সালে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে ফ্রি-কিকে গোল পান এ পর্তুগিজ স্ট্রাইকার। তবে তার শট রিয়াল ডিফেন্ডার পেপের গায়ে লেগে জাল স্পর্শ করে। এতে গোলটি অফিশিয়ালি লেখা হয় পেপের নামে।
নেইমারের প্রথম অ্যাওয়ে হ্যাটট্রিক
বার্সেলোনার জার্সি গায়ে ক্যারিয়ারে অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রথমবার হ্যাটট্রিক নৈপুণ্য দেখালেন নেইমার। রোববার স্প্যানিশ লা লিগায় লাস পালমাসের বিপক্ষে ৪-১ গোলে জয় কুড়ায় তার দল বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষ মাঠে হ্যাটট্রিক করেন বার্সেলোনার ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। স্প্যানিশ লা লিগা আসরে কোনো ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের হ্যাটট্রিকের ঘটনা দেখা গেল ১২ বছর পর। সর্বশেষ ২০০৫ সালে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন রিয়াল বেতিসের ব্রাজিলিয়ান তারকা রিকার্ডো অলিভেইরা। রোববার ম্যাচে নেইমারের মাত্র ২ মিনিটের ঝলকে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ২৫তম মিনিটে গোল পান নেইমার। আর ২৭তম মিনিটে নেইমারের দারুণ অ্যাসিস্টে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বার্সার উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। ৬৩ মিনিটে লাস পালমাস এক গোল ফেরত দিলে চাঞ্চল্য বাড়ে স্বাগতিক গ্যালারিতে। তবে মাত্র চার মিনিটের ব্যবধানে (৬৭ ও ৭১) জোড়া গোল নিয়ে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেন নেইমার। এবারের লা লিগায় বার্সেলোনার এটি মাত্র দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। কাতালানরা প্রথম হ্যাটট্রিকের দেখা পায় আসরের একবারে প্রথম ম্যাচে। রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে ৬-২ গোলের জয়ে হ্যাটট্রিক করেন সুয়ারেজ। চলতি মৌসুম ৪৩ ম্যাচে ১৯ গোল পেলেন নেইমার। আর নেইমারের অ্যাসিস্টও রয়েছে ১৯টি।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

মন্তব্য
Loading...