শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশের প্রধান কোচ ওয়ালশ

0 ৯৫৭

দেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে টেকনিক্যাল ডিরেক্টরের মোড়কে প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করেছিলেন খালেদ মাহমুদ। এবার এ দায়িত্ব দেওয়া হলো আনুষ্ঠানিকভাবেই। শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান কোচ কোর্টনি ওয়ালশ।

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচের দায়িত্ব নেন ওয়ালশ। মেয়াদ ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। শ্রীলঙ্কা সফরে তিনি মূল কোচের দায়িত্ব পাওয়ায় বোলিং কোচ করা হবে অন্য কাউকে।

সোমবার বিসিবিতে সংবাদ সম্মেলনে ওয়ালশকে নতুন দায়িত্ব দেওয়ার ঘোষণা দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান।

“গত সিরিজে আমরা দেখেছি, বিভিন্ন জন নানা দায়িত্বে থাকলেও হেড কোচ বলে কেউ ছিল না। না থাকাতে অনেকের ধারণা যে একটু অসুবিধা হয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কে নেবে! একেকজন একে কথা বলেছে, সবার মন রাখতে গিয়ে এক রকম হয়েছে। পাশাপাশি এমন একজন দরকার, যাকে মেন্টর বলেন বা সিনিয়র হিসবে, সবাই মান্য করবে।”

“সব ভেবে প্রধান কোচের ব্যাপারটি আমরা ঠিক করেছি। শুধুমাত্র নিদাহাস ট্রফির জন্য আমরা ঠিক করেছি, কোর্টনি ওয়ালশকে আমরা প্রধান কোচের দায়িত্ব দিচ্ছি। তিনি অনেক অভিজ্ঞ। সবার অত্যন্ত শ্রদ্ধেয়, সবাই সম্মান করে। আমার মনে হয় কারও কোনো সংশয় থাকার কথা নয়।”

চন্দিকা হাথুরুসিংহে আচমকা দায়িত্ব ছাড়ার পর থেকে প্রধান কোচ খুঁজছে বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে প্রধান কোচ ছিলেন না কেউ। টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদের পাশাপাশি দলকে দেখভালের দায়িত্বে ছিলেন সহকারী কোচ রিচার্ড হ্যালসল।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে হারের পর বাংলাদেশ হেরেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ। দল গঠনসহ আরও অনেক কিছু নিয়েই প্রবল সমালোচনা হয়েছে নির্বাচকদের ও টিম ম্যানেজমেন্টের। ‘নোংরা জায়গায়’ কাজ করতে চান না বলে নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন খালেদ মাহমুদ। সব মিলিয়ে বেশ কিছুদিনের অস্থিরতার পর ভারপ্রাপ্ত প্রধান কোচের ঘোষণা দিল বিসিবি।

নিদাহাস ট্রফিতে খেলতে বাংলাদেশ দল ঢাকা ছাড়বে আগামী ৪ মার্চ।

মন্তব্য
Loading...