ভারত থেকে ফিরে যা বললেন ওবায়দুল কাদের

0 ১৪০

ভারত সফর শেষে দেশে ফিরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দাবি করেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন বিষয়ে প্রতিবেশী দেশ ভারতের ইন্টারফেয়ার করার কিছু নেই। এমনকি কারও অনুগ্রহে নয়, বরং জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আগামীতে ক্ষমতায় আসতে চায় আওয়ামী লীগ।

ভারতীয় জনতা পার্টি বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের আমন্ত্রণে তিন দিনের সফর শেষে মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল ঢাকা বিমানবন্দরে পৌঁছে। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা একটি রাজনৈতিক দল। আমরা আজ ক্ষমতায় আছি কাল নাও থাকতে পারি। আমাদের ক্ষমতার উৎস দেশের জনগণ। দেশের জনগণই নির্ধারণ করবে কে ক্ষমতায় আসবে। এই বিষয়ে প্রতিবেশী দেশ ভারতের ইন্টারফেয়ার করার কিছু নেই। আমরা আশাও করি না। এসব ব্যাপার আমরাই ঠিক করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিদেশি শক্তি আমাদের বন্ধু হতে পারে। কিন্তু নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে আমরা তা আশা করি না। আর ভারত নির্বাচনের হস্তক্ষেপ করে না। এবারও করবে না। তাদের অনেক নেতার সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে, আলোচনা হয়েছে।’

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের স্বার্থে আমরা যেকোনো দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক করতে পারি। আমাদেরকে বিজেপি আমন্ত্রণ জানিয়েছে। আমরা কি সেখানে খেতে গেছি নাকি? ওখানে কি আমরা বেড়াতে গেছি? আনন্দ উল্লাস করতে গেছি? আমরা তাদের সঙ্গে সিরিয়াসলি আলাপ আলোচনা করেছি। আর যা আলোচনা হয়েছে সবকিছুই বলবো কোনো কিছু লুকাবো না। একটি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সবকিছুই বলা হবে।’

তারপড়েও তিস্তা পানিবন্টন চুক্তি নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যেটা তা হলো তিস্তা চুক্তি। আমরা ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি, আপনারা দু’জন বছরের পর বছর ঝুলে থাকা সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন করেছেন। এর ফলে বাংলাদেশের মানুষের কাছে আপনার এবং আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গ্রহণযোগ্যতা অনেক বেড়েছে। আমরা আশা করবো তিস্তা চুক্তিও আপনাদের হাত ধরেই হবে।’
‘উত্তরের জনপদে পানির জন্য হাহাকার এখন বাস্তবতা। বিষয়টি মোদিকে জানানো হয়েছে। বলেছি, ‘এই কাজ করলে, দুই পিএম এর চলমান টার্মে হলে ট্রিমেন্ডাস গুড উইল সৃষ্টি হবে।’

‘তিস্তার পানিবন্টন চুক্তির ব্যাপারে মোদি আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদলকে আশ্বস্ত করেছেন’ বলেও জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তারেক রহমানের নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন করা হলে এড়িয়ে যান মন্ত্রী। বলেন, ‘আমি তিন দিন দেশে ছিলাম না। না জেনে কিছু বলতে পারবো না। আর আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এই বিষয়ে কথা বলেছেন।’

এর আগে প্রতিনিধি দলকে বিমানবন্দরে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, ও কার্যনির্বাহী সদস্য আমিরুল আলম মিলন।

গত ২২ এপ্রিল ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দল ভারতে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল বিজেপের আমন্ত্রণে দেশটিতে সফরে যায়।
মঙ্গলবার বিকেল ৪টা ২০মিনিটে জেট এয়ারওয়েজ যোগে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে ওবায়দুল কাদের নেতৃত্বাধীন ১৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলকে বহনকারী বিমান।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

মন্তব্য
Loading...