Sylhet Express

সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে: রানা দাশগুপ্ত

0 ৫৭৯

ডেস্ক রিপোর্ট:: বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন, দেশ উন্নয়নের সাথে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক কিন্তু দেশটিকে যাতে কেউ সুমালিয়ার পথে ঠেলে নিয়ে যেতে না পারে সেজন্য সকলকে সজাগ ও সতর্ক থাকার সময় এসেছে। তিনি বলেন, সরকারী দলের নির্বাচনী ইশতেহারে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের পাশাপাশি সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের প্রতিশ্রুতি আছে। আমরা এ প্রতিশ্রুতির আশু বাস্তবায়ন দেখতে চাই।

এডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন, সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি, জমি জবরদখল, নির্যাতন নিপীড়ন আবার শুরু হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে মহল বিশেষ দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরীর চেষ্টা চলছে। বঙ্গবন্ধুর দলের অনেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করেন না। এরা খন্দকার মোস্তাকের প্রেতাত্মা, ছদ্মবেশী প্রগতিশীল। ব্যক্তিস্বার্থে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে এরা তৎপর। এদের বিরুদ্ধে আজকে আমাদের সোচ্ছার হতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের দাবির মুখে সরকার জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন, অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পণ আইনের দ্রুত বাস্তবায়ন, পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি আইনসহ পার্বত্য শান্তি চুক্তির দ্রুত বাস্তবায়নের অঙ্গিকার করেছে। আমরা এ অঙ্গিকার বাস্তবায়নে সরকারের দৃশ্যমান উদ্যোগ দেখতে চাই। তিনি আরও বলেন, আমরা যদি মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হই তাহলে আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করতে হবে, গণতান্ত্রিক, অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় আন্তরিক প্রয়াস নিতে হবে। সকল প্রকার বৈষম্যমূলক আইন বাতিল করতে হবে। শিক্ষার সাম্প্রদায়িকরণ বন্ধ করতে হবে। ধর্মীয় সম্পত্তি সংরক্ষণ আইনসহ সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিটি ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। তিনি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সুরক্ষার জন্য সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি জানান।

২৭ এপ্রিল শনিবার বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট মহানগর শাখার ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রানা দাশগুপ্ত উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন ঐক্য পরিষদ, মহানগর শাখার সভাপতি এডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা। সকাল ১১টায় জেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে জাতীয় পতাকা ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের সূচনা হয়।

বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট মহানগর শাখার ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ গীতা থেকে পাঠ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বিবেকানন্দ সমাজপতি, ত্রিপিটক পাঠ করেন শ্রীমৎ সংঘানন্দ থেরো, অধ্যক্ষ, বৌদ্ধ বিহার। বাইবেল পাঠ করেন পাস্টর, সিলেট প্রেস ব্রিটেরিয়ান চার্চের ফিলিপ বিশ্বাস। ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন, ঐক্য পরিষদের সহ-সভাপতি নির্মল সিন্হা, মহানগর ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ কুমার দেব সাধারণ সম্পাদকের উপস্থাপন করেন।

ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রণীধর কুমার দেব, জয়ন্ত কুমার দেব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান, ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি, বিরাজ মাধব চক্রবর্তী মানস, সভাপতি, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, নিরঞ্জন কুমার দে (এডভোকেট), সভাপতি, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, মহানগর সভাপতি সুব্রত কুমার দেব, ডিকন নিজুম সাংমা, চেয়ারম্যান, সিলেট প্রেস ব্রিটেরিয়ান চার্স, নয়াসড়ক খ্রিষ্টান মিশন, মি. রামেন্দ্র বড়–য়া, কো-চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা ও উপদেষ্টা, সিলেট বৌদ্ধ সমিতি, মলয় পুরকায়স্থ, সহ-সম্পাদক, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি। এছাড়াও সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন এডভোকেট প্রদীপ কুমার ভট্টাচার্য্য, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবতোষ রায় বর্মণ, সাবেক কমান্ডার, সিলেট মহানগর মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ড, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোপীকা শ্যাম পুরকায়স্থ, কোষাধ্যক্ষ, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, এডভোকেট পঙ্কজ কুমার রায়, সাবেক সভাপতি, মহানগর ঐক্য পরিষদ, সিনিয়র সদস্য, তপন মিত্র, রঞ্জন ঘোষ (এডভোকেট), সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, রজত কান্তি গুপ্ত, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ, সিলেট মহানগর, উৎপল বড়ুয়া, সভাপতি, সিলেট বৌদ্ধ সমিতি, দানেশ সাংমা, সভাপতি, ট্রাইভাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন, ধনঞ্জয় দাস ধনু, সভাপতি, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, শান্ত দেব, সভাপতি, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ, সিলেট মহানগর শাখা, সুবিনয় মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ, সিলেট জেলা শাখা, রথীন্দ্র দাস ভক্ত, সাধারণ সম্পাদক, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ, সিলেট মহানগর শাখা, বিভিন্ন থানা কমিটির মধ্যে বক্তব্য রাখেন কতোয়ালী থানা শাখার আহ্বায়ক পান্না লাল দাস, এয়ারপোর্ট থানার আহ্বায়ক জি.ডি রুমু, জালালাবাদ থানার সদস্য সচিব বাবুল দে, শাহপরান থানার আহ্বায়ক ধীরেন্দ্র ধর, মোগলাবাজার থানার আহ্বায়ক বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, দক্ষিণ সুরমা থানার আহ্বায়ক অরিন্দম দাস প্রমুখ।

ত্রিবার্ষিক দ্বিতীয় অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে এডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলাকে সভাপতি ও প্রদীপ কুমার দেবকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আগামী তিন বছরের জন্য দায়িত্ব প্রদান করা হয়। সম্মেলনে সিলেট বৌদ্ধ সমিতি, ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন থানা কমিটির পক্ষ থেকে মিছিল সহকারে নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

মন্তব্য
Loading...