চিকিৎসা শেষ হলেই খালেদাকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থানান্তর

0 ২২৯

ডেস্ক রিপোর্ট:: দুর্নীতি, নাশকতাসহ ১৭ মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিচার হবে ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারের ফটকে স্থাপিত ২ নম্বর ভবনে। এরই মধ্যে ভবনটিকে বিশেষ আদালত হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। আইন, বিচার ও সংসদ মন্ত্রণালয়ের জারি করা এসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন আজ সোমবার সংশ্লিষ্ট আদালত ও ঢাকার প্রসিকিউশন বিভাগে পৌঁছেছে।

দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া চিকিত্সাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের প্রিজন সেলে। চিকিৎসা শেষে তাঁকে কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হবে। এ কারণে ওই কারাগারেই তাঁর বিচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার আইন মন্ত্রণালয় ১৭টি মামলার জন্য আলাদা প্রজ্ঞাপন জারি করে। মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব-১ গোলাম সারোয়ারের সই করা ওই সব প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, নিরাপত্তার স্বার্থে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের ফটকে স্থাপিত ভবন-২কে বিশেষ আদালত ঘোষণা করা হলো। এত দিন ওই সব মামলার বিচারকাজ চলছিল পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার এবং কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে। এখন থেকে নতুন ঘোষিত বিশেষ আদালতে বিচার কার্যক্রম চলবে। গতকাল থেকেই এই আদেশ কার্যকর হয়েছে বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উপকমিশনার (ডিসি-প্রসিকিউশন) মোহাম্মদ আনিসুর রহমান কালের কণ্ঠকে জানান, খালেদা জিয়ার ১৭ মামলার বিচারের জন্য কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারের একটি ভবনকে বিশেষ আদালত ঘোষণা করে জারি করা প্রজ্ঞাপন আদালতে পৌঁছেছে। তিনি আরো জানান, গত রবিবার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খালেদা জিয়াকে রাখার জন্য কারা কর্তৃপক্ষ আজ সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের মহিলা ইউনিটটি বুঝে পায়নি গণপূর্ত বিভাগের কাছ থেকে। কারা সূত্র জানিয়েছে, কয়েক দিন আগে মহিলা ইউনিটটি বুঝে নেওয়ার জন্য গণপূর্ত কারা কর্তৃপক্ষকে চিঠি পাঠায়। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিতে সব কাজ শেষ না হওয়ায় তারা তাদের চাহিদা জানিয়ে চিঠি দিয়েছে গণপূর্তকে। এরপর সেই কাজগুলো এখন করা হচ্ছে।

এক কারা কর্মকর্তা জানান, এই সপ্তাহে কাজ শেষ হলে মহিলা ইউনিটটি বুঝে নেওয়া হবে। এই মহিলা ইউনিটের ভিআইপি সেলে রাখা হবে খালেদা জিয়াকে।

সূত্র জানায়, একটি চারতলা, একটি তিনতলা ও একটি দোতলা ভবন নিয়ে মহিলা ইউনিটটি করা হয়েছে। তিনতলা ভবনটিতে রাখা হবে ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দিদের। চারতলা ভবনটিতে রাখা হবে সাধারণ নারী বন্দিদের।

এ ছাড়া তিনতলাবিশিষ্ট একটি হাসপাতালও করা হয়েছে, যেখানে শুধু নারী বন্দিরাই চিকিৎসা নিতে পারবেন। আরো করা হয়েছে একটি কিশোরী সেল। সূত্র জানিয়েছে, তিনতলার ডিভিশনের ভিআইপি সেলে রাখা হবে খালেদা জিয়াকে। ভবনগুলো পানি, বিদ্যুৎসহ বসবাসের উপযোগী করা হয়েছে।

খালেদা জিয়ার যেসব মামলার বিচার কেরানীগঞ্জের বিশেষ আদালতে হবে সেগুলোর মধ্যে আছে গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা, বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি মামলা, নাইকো দুর্নীতির মামলা, ঢাকার দারুস সালাম থানার ৯টি নাশকতার মামলা, যাত্রাবাড়ী এলাকায় একটি বাসে পেট্রল ঢেলে আগুন দেওয়ার ঘটনায় এক যাত্রী নিহত হওয়ার মামলা, একই ঘটনায় বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের মামলা, একটি রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা এবং দুটি মানহানির মামলা।

মন্তব্য
Loading...