Sylhet Express

সিলেটে খাদিমনগর ইউনিয়নে তারা বাহিনীর হামলায় আহত ৬

0 ৫৪০

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেটের বড়শলা এলাকার মংলিপাড়ে সদর উপজেলার খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার তারা মিয়া ও তার বাহিনীর অতর্কিত হামলায় একই পরিবারের ৬জন সদস্য আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনে অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। গত শুক্রবার রাত ১১টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৭ জনের নামোল্লেখ করে ও ৫ জনকে অজ্ঞাত রেখে সিলেটে এয়ারপোর্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন আহত মংলিপাড়ের মৃত আনা মিয়ার ছেলে রাজা মিয়া। মামলা নং-২২।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গেলো কদিন থেকে সরকারের দেয়া ত্রাণ বিতরণ সর্ম্পকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালেখি নিয়ে খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার তারা মিয়ার কথাকাটি হয় রাজা মিয়ার। একারণে মেম্বার তারা মিয়া বিভিন্ন সময়ে রাজা মিয়াকে হুমকি-দামকি দিয়ে আসছেন। এরই জের ধরে গত শুক্রবার রাত ১১টায় সদর উপজেলার খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার তারা মিয়া ও তার বাহিনী দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে মংলিপাড়ের রাজা মিয়া ও তার অসহায় পরিবারের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

হামলাকারীরা বাঁশ, লাঠি, দা ও লোহার পাইপ দিয়ে আঘাত করে রাজা মিয়ার মাথা থেতলে দেয়। রাজা মিয়াকে বাচাঁতে আসা তার ছোটভাই তারেক এগিয়ে আসলে তারা তার মাথায় দা দিয়ে কুপ দেয়। লাঠি দিয়ে আঘাত করে তার দুটি দাঁত ভেঙে দেয়। রাজা মিয়ার আরেক ছোট ভাই আব্দুল করিমের মাথায় তারা বাহিনী পাইপ দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্তবস্থায় মাটিতে ফেলে রাখে। (রাজা মিয়ার মাথায় ১২ টি, তারেকের মাথায় ১০টি ও করিমের মাথায় ৬টি সেলাই লাগে)।ঘটনার সময় তারা বাহিনী রাজা মিয়ার ঘর লুট করে নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। এসময় তারা বাহিনীকে রাজার মা ও স্ত্রী বাধা দিলে তারা বাহিনী তাদের শ্লীলতাহানী করে। প্রায় ঘন্টাব্যাপী এই তান্ডব চালায় তারা বিহীনি।

গুরুত্বর আহত অবস্হায় তারে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেলে পাঠান। হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন রাজা মিয়ার ভাই তারা মিয়া। তার অবস্হা আশঙ্কাজনক। এই হামলায় আহত রাজা মিয়া, আমিন মিয়া, তারেক মিয়াসহ আরো অনেকেই ওসমানী মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।বর্বর এই হামলার ঘটনায় মামলায় আসামী করা হয়েছে খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার তারা মিয়ার নেতৃত্বে অংশ নেয় তার বড় ছেলে আক্তার হোসেন (৩০), তারেক মিয়া (২৭), সজিব (২৪), একই এলাকার চাণ মিয়ার ছেলে রজিব (২২), আতর আলীর ছেলে রাহেল (২৭), রাজু (৩০) সহ আরো অজ্ঞাত ৪/৫ জন লোক।

মামলার অভিযোগে প্রকাশ সদর উপজেলার খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার তারা মিয়া ঘুষের বিনিময়ে ন্যায়কে অন্যায় আর অন্যায়কে ন্যায় করেন। বড়শলার মংলিপাড় এলাকায় “তারা বাহীনি” নিয়ন্ত্রক তারা মেম্বার। রাতের আধাঁরে সিলেট এয়ারপোর্ট এলাকায় ছিনতাইসহ নানা অপরাধ কর্ম “তারা বাহীনি” করে বেড়ায়। তাদের ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে পারে না এবং কেউ কোনো প্রতিবাদ করেনা।একটি সূত্র জানিয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন অসহায় মানুষকে সরকার ত্রাণ দেওয়ার ব্যবস্হা করলে প্রভাব খাঁটিয়ে তারা মেম্বার স্বজনপ্রীতি ও কারচুপি করেন। এতে রাজা মিয়া প্রতিবাদ করেন। যে কারণে তারা মেম্বারের টার্গেটে পরিণত হন রাজা মিয়া ও তার পরিবার।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক একজন জানান, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নগদ ২৫০০ টাকা ঘোষণা করার পর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এই প্রভাবশালী সভাপতি তারা মিয়া তার দলীয় প্রভাব বিস্তার করে অসহায় মানুষদের কাছে নাম অন্তর্ভুক্ত করে দেয়ার কথা বলে ১০০০ টাকা চাঁদা দাবী করেছেন।এসএমপির এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম শাহাদাত হোসেন জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। আসামীদের ধরতে বিভিন্নস্থানে অভিযান চলছে।

মন্তব্য
Loading...