Sylhet Express

সাবানের প্যাকেটে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা

0 ৭৫

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে কাভার্ড ভ্যানের বডি কেটে ভেতরে সাবানের প্যাকেটে ইয়াবা ভরে ওপরে ঝালাই করে ঢাকায় আনা হয়েছিল। তবে মাদক কারবারিদের বিশেষ কায়দা করে আনা এ ইয়াবা রাজধানীর কারওয়ান বাজার থেকে জব্দ করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। কাভার্ড ভ্যানটির পেছনের দরজার বডি কেটে ‘নট ফর সেল’ (বিক্রির জন্য নয়) সাবানের প্যাকেট খুলে বের করা হয়েছে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা।

সোমবার (১ জুন) বিকেল ৪টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কারওয়ান বাজারে অভিযান চালিয়ে ওই ইয়াবা জব্দের পাশাপাশি এক মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-২ এর একটি দল। ওই মাদক কারবারির নাম জাকির হোসেন (২৮)। তিনি রাজশাহীর পুঠিয়ার পীরগাছা এলাকার মহিদুল ইসলামের ছেলে।

র‍্যাব-২ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার পুলিশ সুপার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী জানান, কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে আসা কাভার্ড ভ্যানটির পেছনের দরজার বডির ভেতরে ইয়াবা ঢুকিয়ে ওপরে ঝালাই করে ঢাকায় আনা হয়েছিল। কিন্তু গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এ চালান জব্দ করা হয়েছে।

গ্রেফতার জাকির জিজ্ঞাসাবাদে জানান, ইয়াবার চালানটির মূল মালিক রায়হান নামের এক মাদক কারবারি। গত ৩ মার্চ পিকনিক বাসের আড়ালে ২০ হাজার পিস ইয়াবার যে চালানটি ধরা পড়ে, সেটিও রায়হানের ছিল। মুখ দিয়ে গিলে পাকস্থলীতে করে আনার সময় ইয়াবার যে ক’টি চালান সম্প্রতি র‍্যাব-২ এর হাতে ধরা পড়ে, তারও মূল কারবারি রায়হান। সোমবার ধরা পড়া এ ইয়াবার গন্তব্য ছিল গাজীপুর জেলার চন্দ্রা এলাকা। কাভার্ড ভ্যানটির মালিকও রায়হান।র‌্যাব জানায়, গ্র‍্যান্ডিং মেশিন দিয়ে ভ্যানটির বডি কেটে দরজার পাল্লার ভেতর থেকে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। ইয়াবাগুলি স্যাভলন সাবানের প্যাকেটে ভরা। সাবানের প্যাকেটের গায়ে ইংরেজিতে ‘নট ফর সেল’ লেখা আছে।

জাকির জানান, রোহিঙ্গাদের জন্য বিনামূল্যে যেসব সাবান সরবরাহ করা হয় তা হাত ঘুরে কালো বাজারে চলে আসে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে কালো বাজারে আসা সেসব সাবানের প্যাকেট মাদক ব্যবসায়ীরা সংগ্রহ করে তাতে বিশেষ কায়দায় ইয়াবার প্যাকেট ভরে গাড়ির বডির ভেতর ঢুকিয়ে ঝালাই করে ঢাকায় নিয়ে আসে।গ্রেফতার জাকিরসহ মাদকের মূল কারবারিদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তেঁজগাও থানায় মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানায় র‌্যাব।

মন্তব্য
Loading...