Sylhet Express

সিলেটে কারফিউ জারির দাবি

0 ১২২

সিলেটে শনিবার (৬ জুন) সকাল পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১ হাজার ৪১৩ জন রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ৩১ জন।হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২০৬ জন।এ অবস্থায় সিলেটকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দিক থেকে রেডজোন ঘোষণার দাবি উঠেছে।সচেতন নাগরিকরা বলছেন এখনই রেডজোন ঘোষণা করে সিলেটের মানুষকে ঘরে আটকে রাখতে না পারলেও পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে।

আক্রান্তের সংখ্যা যেমন বেশি তেমনি মৃত্যুও হয়েছে সিলেট জেলায় সবচেয়ে বেশি। সিলেট বিভাগে এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারী ৩১ জনের মধ্যে ২৪ জনই সিলেট জেলার। শনাক্তের দিক দিয়ে সিলেট জেলায় বিশ্বনাথ ও জৈন্তাপুর উপজেলার অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। বিশ্বনাথে এখন পর্যন্ত ৪৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৩৬ জনই পুলিশ সদস্য। আছেন স্বাস্থ্যকর্মীও। জৈন্তাপুর উপজেলায় এখন পর্যন্ত ৪৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সরকারি কর্মকর্তা, স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক রয়েছেন। উপজেলায় করোনা আক্রান্ত একজনের মৃত্যুও হয়েছে।

ঢাকা, নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বেশকিছু স্থানে করোনার সংক্রমণ দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় এলাকাভিত্তিক রেড, ইয়েলো ও গ্রিন জোনে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ অবস্থায় সিলেট জেলাকেও রেডজোন ঘোষণার দাবি উঠেছে।সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ মনে করেন এখনই সিলেটকে রেড জোন ঘোষণা করে কারফিউ জারি করা উচিত। সিলেটে যে হারে প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে কারফিউ ছাড়া সংক্রমণ ঠেকানো যাবে না বলে মনে করেন তিনি।

ফারুক মাহমুদ চৌধুরী বলেন,সিলেটে প্রায় সবার বাসায় কেউ না কেউ অসুস্থ আছেন। তবুও সিলেটের মানুষ সচেতন হচ্ছেন না। এই মুহূর্তে কারফিউর পাশাপাশি জরিমানার ব্যবস্থা করতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই জরিমানা করতে হবে।এ ব্যাপারে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন ‘রেড জোনের ঘোষণা ঢাকা থেকে দেওয়া হবে। ঘোষণা এলে আমরা লকডাউন বা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।

মন্তব্য
Loading...