নগরীতে ইয়াবা ব্যবসার টাকা না পেয়ে ইয়াবা সম্রাট ও তার পিতার তান্ডব

0 ১,১৮২

সিলেট নগরীর উপশহরের এইচ ব্লক এলাকার পপি বেগম নামের এক মুদির দোকান ব্যবসায়ীর উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। বেধড়ক মারধর ও দোকান ভাঙচুরের পর হামলাকারীরা দোকান থেকে ৩৫ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে নিয়ে জায়।

স্থানীয় সূত্রে জনাযায় গতকাল শুক্রবার রাত আনুমানিক ১০টার দিকে এইচ ব্লকের ৩ নম্বর রোডের শেষ প্রান্তে শিপার মিয়ার কলনীর সামনেই এ ঘটনা ঘটে। শাহপরাণ(রহঃ)থানাধীন পিরেরবাজারের কুনিরচক গ্রামের মহিলা ছিনতাইকারী ও চোর সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রক মন্নান ওরফে(ভাংগারী মন্নান)তার ছেলে সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুন হোসেন প্রকাশ(ইয়াবা মামুন),মামুনের আপন ভাগিনা ইয়াবা আদান প্রদানের সহযোগী রাহুল আহমদসহ অন্যান্য কয়েকজন সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের অভিযুক্ত করে অভিযোগ দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন হামলার শিকার হওয়া মুদি দোকানী পপি বেগম । অভিযোগকারীর সূত্রে জানা যায়,

সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী ইয়াবা মামুন পপি বেগমকে ধর্মের মা বানান যখন পপি জানতে পারেন তার ধর্মের ছেলে ইয়াবা ব্যবসায়র সাথে জড়িত তখনি ধর্মের মা পপি বেগম তাকে নিষেধ করেন মাদক ব্যবসার সাথে না জড়াতে আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্মের ছেলে মামুন প্রকাশ ইয়াবা মামুন,নানান ধরনের টাল বাহনা শুরুকরে গত কয়েকদিন পূর্বে সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী ইয়াবা মামুনের নামে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে {নগরীতে প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের নাম ভাঙ্গিয়ে দাপটের সাথে চলছে ইয়াবা মামুনের ইয়াবা সম্রাজ্য !}শিরনামে কয়েকটি পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় ।

আর তার পর থেকেই মুদি দোকানী পপি বেগমকে সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী ইয়াবা মামুন ও তার পিতা মন্নান মিয়া ওরফে(ভাংগারী মন্নান)বিভিন্ন রকমের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে,ইয়াবা মামুন পপি বেগমকে প্রশ্ন করে আমি ইয়াবা ব্যবসা করি তা তুমি ভালো করেই জানো এবং আমি নিজেই তুমাকে আমার মাদক ব্যবসার কথা জানাই। আর আমার ইয়াবা ব্যবসার তথ্য তুমিই সাংবাদিকদের দিছো।

আমি তোমাকে দেখে নেব।আর এরই জেরধরে গতকাল শুক্রবারে মুদি দোকান ব্যবসায়ী পপি বেগমের দোকানে ভাঙ্গারি মন্নানের,ও ইয়াবা মামুনের নেতৃত্বে,ইয়াবা সরবরাহকারী রাহুলসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন সন্ত্রাসী পপি বেগমের দোকানে প্রবেশ করে অতর্কিত ভাবে দোকানের মধ্যে এলোপাতাড়ী ভাবে লোহার রড়,লাঠি,রামদা দিয়ে পপি বেগমেকে কিল-ঘুষি-লাথি মেরে গুরুতর আহত করে দোকান থেকে টাকা ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায় ।বেধড়ক মারধর ও দোকান ভাঙচুরের পর হামলাকারীরা দোকানের ক্যাশ বাক্সে থাকা নগদ ৩৫ হাজার টাকা ও মোবাইল লুট করে নেয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন শাহপরান ( রহঃ ) থানা পুলিশের একটি টিম। মহিলা ব্যবসায়ী পপি বেগম আরো বলেন মামুন আমার কাছ থেকে টাকা নিত দিয়েও দিত কিন্তু এখন সে আমার নিকট ৫ লক্ষ টাকা দাবী করে,আমি মামুনকে বলি এতো টাকা আমি কোথায় পাব। কিন্তু ইয়াবা মামুন তা মানতে রাজি নয়,সে আমাকে বলে এই টাকা দিয়ে আমরা ইয়বার একটি বড় চালান আনবো,আর ইয়াবা বিক্রির পর তোমাকে লাভসহ টাকা ফেরৎ দিয়ে দেব। আমি টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আজ মন্নান মিয়া ওরফে (ভাংগারী মন্নান) ও তার ছেলে সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুন হোসেন আমার উপর হামলা চালিয়ে আমার দোকানের মালপত্র ও নগদ ৩৫ হাজার টাকা,ও মোবাইল লুটকরে নিয়ে যায়।

এবং যাবার সময় মন্নান ও তার ছলে ইয়াবা মামুন আমার স্বামী সহ ছেলে মেয়েদের হুমকি দিয়ে বলে তোকে টাকা দিতে হবে ।তুই সাংবাদিকদের কাছে আমার সবকথা ফাঁস করে দিয়েছিস,এতে আমার ইয়াবা ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে। মুদি দোকানী পপি বেগম আরো বলেন আমি আমার স্বামী সন্তানদের নিয়ে খুব আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছি। কারন মন্নান মিয়া ওরফে (ভাংগারী মন্নান) ও তার ছেলে সিলেটের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুন ওরফে ইয়াবা মামুন খুবই খারাপ লোক।

থানা পুলিশ তাদের হাতের মুঠোয়। তারা যেকোন সময় আবার আমার উপর হামলা চালাতে পারে । এব্যপারে শাহপরাণ(রহঃ) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আং কাইয়ূম চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনাটি আমি জানতে পেরেছি, এবং সঙ্গেসঙ্গে সেখানে পুলিশ ও পাঠিয়েছি। কেউ যদি আমাদের কাছে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ করে তাহলে আমরা তা অবশ্যই খতিয়ে দেখবো।

মন্তব্য
Loading...